Home / ত্বকের যত্ন / যে ৮ টি উপাদান আপনার ত্বকের ক্ষতি করে!

যে ৮ টি উপাদান আপনার ত্বকের ক্ষতি করে!

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি বা সৌন্দর্য রক্ষার জন্য বেশীরভাগ মানুষই অনেক উপাদান ব্যবহার করে থাকেন। অনেকে এলমার্স গ্লু ব্যবহার করতেও পিছপা হন না ব্ল্যাকহেডস দূর করার জন্য। কিন্তু এটি আসলে কার্যকরী নয়, তাই দয়া করে আপনিও এটি ব্যবহার করবেন না। চলুন তাহলে এমন কিছু জনপ্রিয় স্ক্রাব বা মাস্ক এর কথা জেনে নিই যেগুলো আপনার ত্বকের ভালোর চেয়ে মন্দই করে বেশি।

১। বেকিংসোডা
ফেস স্ক্রাব করার জন্য বেকিং সোডাকে এক্সফলিয়েটর হিসেবে ব্যবহার করা হয়, আপাতদৃষ্টিতে একে অক্ষতিকর পাউডার মনে হলেও এটি আসলে আপনার ত্বকের জন্য সর্বনাশা। ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডারমাটোলজিস্ট ও এমডি মোনা গহর বলেন, আপনার ত্বকের স্বাভাবিক pH এর মাত্রা ৪.৫-৫। অন্যদিকে বেকিংসোডা ক্ষারীয় এবং এর pH ৯। যা আপনার ত্বকের প্রাকৃতিক বাঁধাকে ক্ষতিগ্রস্থ করে, যা খারাপ ব্যাকটেরিয়াকে দূর করার জন্য প্রয়োজনীয়। এটি আপনার ত্বকে একবার ব্যবহার করলেও আপনার ত্বকের ক্ষতি করতে পারে, যদিও তা আপনি খালি চোখে বুঝতে পারবেন না এবং দীর্ঘদিন যাবত এর ব্যবহারের ফলে আপনার ত্বকের আর্দ্রতা কমে যাবে এবং ত্বকের নিজস্ব স্বাস্থ্য নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা আপোষ করে, বিষয়টা মজা করার মত নয় তাইনা?
২। লেবু
লেবুর pH বেকিংসোডা থেকে একেবারেই ভিন্ন মাত্র ২, অর্থাৎ এটি অনেক বেশি এসিডিক। গহর বলেন, আপনি যখন লেবু সরাসরি আপনার ত্বকে ব্যবহার করবেন তখন এর এসিড দ্রুত আপনার ত্বকের আবরণের এর ক্ষতি করবে এবং কোষীয় পর্যায়ে যন্ত্রণার সৃষ্টি করবে। সাইট্রাস ফলের তেলও ফটোটক্সিক, তাই এ ধরণের ফল ত্বকে লাগানোর পর যদি সূর্যের আলোয় যাওয়া হয় তাহলে ত্বকে ফুসকুড়ি সৃষ্টি করতে এবং ত্বক পুড়িয়ে দিতে পারে। তাই লেবু সরাসরি ত্বকে লাগানো উচিত নয়।
৩। হেয়ার স্প্রে
নামটি দেখে অবাক হচ্ছেন? কেন কেউ মুখে হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করবে? অবাক হওয়ার মত বিষয় হলেও দ্রুত মেকআপ সেটিং করার জন্য অনেকেই সামান্য হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করে থাকেন। দৈবাৎ মুখে হেয়ার স্প্রে লেগে গেলে দুনিয়া বরবাদ হয়ে যাবেনা কিন্তু মেকআপ সেটিং করার জন্য যখন সরাসরি আপনার ত্বকে হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করবে তখন এটি অবিশ্বাস্যভাবেই ত্বকের ছিদ্রগুলোকে বন্ধ করে দেবে এবং ব্ল্যাকহেডস সৃষ্টি করবে এবং হেয়ার স্প্রে এর অ্যালকোহল ত্বককে শুষ্ক করে দিবে। তাই মেকআপ সেটিং এর জন্য নির্ধারিত স্প্রে ব্যবহার করুন হেয়ার স্প্রে নয়।
৪। টুথপেস্ট
গহর বলেন, ত্বকের ডার্ক স্পট দূর করার জন্য টুথপেস্ট ব্যবহার করবেন না, এটি ত্বকের উন্নতিতে কোন কাজতো করেই না বরং আপনার ত্বককে যন্ত্রণাদায়ক উপাদান যেমন- পিপারমেন্ট, পারঅক্সাইড, সুগন্ধি এবং অ্যালকোহলে পরিপূর্ণ করে, যা আপনার ত্বকের ক্ষতি করে এবং পুড়িয়ে দেয়। এর পরিবর্তে দাগ দূর করার জন্য বেঞ্জল পারক্সাইড বা টি ট্রি অয়েল ব্যবহার করুন।
৫। উষ্ণ পানি
গহর বলেন, উষ্ণ পানি ত্বকের আর্দ্রতার বাঁধকে নষ্ট করে দেয়, তাই একে যন্ত্রণাদায়ক হিসেবেই বিবেচনা করা হয়। হ্যাঁ শীতের রাতে হট শাওয়ার নিলে খুব আরাম লাগে সত্যি, কিন্তু উষ্ণ পানি ত্বকের লিপিডের পরিমাণ কমিয়ে দেয়, ফলে ত্বক লাল হয়ে যেতে পারে, যন্ত্রণা হতে পারে এবং চুলকানিও দেখা দিতে পারে ত্বকে, বিশেষ করে যাদের এক্সিমা, সোরিয়াসিস বা ক্যারাটোসিস পাইল্যারিস আছে এবং যাদের ত্বকের বাধ ইতিমধ্যেই নমনীয়। এছাড়া ত্বক শুষ্ক হয়ে গেলে অতিরিক্ত তেল উৎপাদনের প্রয়োজন দেখা দেয় বলে ব্রণের প্রাদুর্ভাব হতে পারে।
৬। হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড
হালকা অ্যান্টিসেপ্টিক গুণ থাকায় হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড ছোটখাট কাটায় এবং পোড়ায় সংক্রমণ প্রতিরোধের ভালো উপায়, কিন্তু ত্বকের যত্নের জন্য এটি ব্যবহার করা ভয়ানক ধারনা। হাইড্রোজেন পারক্সাইড দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে শুধু সাধারণ অ্যালার্জিই সৃষ্টি হয়না যা ত্বকের ইনফ্লামেশন তৈরি করে ত্বকও পুড়িয়ে দেয়, বরং ত্বকের নিরাময় ক্ষমতাও কমিয়ে দেয় এবং ত্বকের সুরক্ষা বাঁধ এবং আর্দ্রতার মাত্রাও কমিয়ে দেয় বলে জানান গহর।
৭। বডি লোশন
আপনার শরীরের ত্বক এবং মুখের ত্বক যেহেতু এক নয় তাই শরীরের ত্বক যা মানিয়ে নিতে পারে মুখের ত্বক তা পারেনা। বেশীরভাগ বডিলোশনে ফেসিয়াল ময়েশ্চারাইজারের তুলনায় প্রচুর সুগন্ধি এবং কম পুষ্টি উপাদান থাকে যা আপনার শরীরের ত্বকের জন্য উপকারী হলেও আপনার মুখের ত্বকের জন্য যন্ত্রণাদায়ক এবং ত্বকের ছিদ্র বন্ধ করে দেয়। মেছতা বা ব্রণের সমস্যা আছে যাদের তাঁদের জন্য এটি জটিল অবস্থার সৃষ্টি করে। এমনকি যাদের ত্বকের সমস্যা নেই তাদের ক্ষেত্রেও কিছু প্রতিক্রিয়া দেখা যেতে পারে। কারণ সুগন্ধি উপাদান ত্বকের অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী প্রধান তিনটি উপাদানের একটি, অর্থাৎ এটি বেশীরভাগ মানুষের জন্যই সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।
৮। চিনি
গহর বলেন, ঠোঁটের মরা চামড়া দূর করার জন্য চিনির ব্যবহার ঠিক আছে, এতে ঠোঁট আরো প্রাণবন্ত হয়। কিন্তু চিনির কৌণিক কোণগুলো মুখের ত্বকের জন্য ক্ষতিকর, যা ত্বকের উপরিভাগে ছোট ছিদ্র সৃষ্টি করতে পারে। ফলে ত্বকে ইনফ্লামেশন হয়, লাল দাগ পরে এবং যন্ত্রণা সৃষ্টি করে। তাই মুখের ত্বকের স্ক্রাবের জন্য রাইস ব্রেন পাউডার ব্যবহার করতে পারেন।

Check Also

ঠোঁটের কালচে দাগ দূর করবে এই ৫ উপাদান!

শুধুমাত্র শীতকালেই নয়, পুরো বছর ধরেই দেখা যায় অনেকের ঠোঁটে একেবারে কালচে দাগ পড়ে থাকে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *